www.banglarkontho.net
  • ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

    চীন-মার্কিন বৈরিতা কেন স্নায়ুযুদ্ধের চেয়েও শঙ্কার?

    ফাইল ছবি
    শেয়ার করুন

    আন্তর্জাতিক ডেস্ক : তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন তথা পূর্ব ইউরোপে কমিউনিজম পতনের ( ১৯৮৯ সালে) পর ২০২২ সালই সম্ভবত সবচেয়ে অস্থির এবং আলোচিত বছর। ইউক্রেন ও তাইওয়ান সংকট বছরজুড়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় ছিল। এ দুই সংকটের বাইরেও বছরটি আলোচিত আরেকটি কারণে। এ বছরই চীনকে অন্যতম পরাশক্তি ও প্রতিদ্বন্দ্বী বলে আখ্যা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অনেক বিশ্লেষকের মতে, সিনো-মার্কিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা অনেকটা স্নায়ুযুদ্ধেরই প্রতিচ্ছবি।
    গত অক্টোবরে প্রকাশিত মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা কৌশলপত্রে চীনকে যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। পাশাপাশি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় স্নায়ুযুদ্ধ পরবর্তী যুগ শেষ হয়েছে বলে ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

    স্নায়ুযুদ্ধ পরবর্তী যুগে যুক্তরাষ্ট্রই ছিল একক পরাশক্তি এবং একমেরু বিশ্ব ব্যবস্থার কেন্দ্রে। চীনকে পরাশক্তি- প্রতিদ্বন্দ্বী বলে স্বীকার করার পর যুক্তরাষ্ট্রের সেই অবস্থান আর থাকে না। তাই যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকেন্দ্রিক দ্বিমেরু বিশ্ব ব্যবস্থাই এখন বাস্তবতা।

    চীন-যুক্তরাষ্ট্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা অনেক কারণেই অনন্য। এ প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাত্রা এবং ধরন আগামী দিনের বিশ্বব্যবস্থায় কেমন হবে, তা কতটা স্থিতিশীল হবে এবং সে অবস্থায় রাষ্ট্রনেতারা কীভাবে আচরণ করবেন সে বিষয়ে পর্যাপ্ত ইঙ্গিত দিয়েছে।

    ইন্দোনেশিয়ার বালিতে গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত জি-২০ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠককে ‘স্নায়ুযুদ্ধ-২-এর প্রথম পরাশক্তি সম্মেলন’ বলে আখ্যা দিয়েছেন বারাক ওবামা প্রশাসনের এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল বিষয়ক উপদেষ্টা ইভান মেডিরস।

    সিনো-মার্কিন দ্বৈরথ এরই মধ্যে বিশ্বে উদ্বেগ তৈরি করেছে। বিশেষ করে ইউরোপে। কারণ মহাদেশটিতে স্নায়ুযুদ্ধকালীন ব্লকের মতো প্রতিদ্বন্দ্বী ব্লক তৈরির সমূহ সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। উন্নয়নশীল দেশগুলো কোন দিকে যাবে তা নিয়ে এখনো নৈতিক সংকটে আটকে পড়েছে। এই সংকট থেকে উত্তরণ এখনই মিলছে না। কারণ, সিনো-মার্কিন দ্বিমেরু এখন কাঠামোগত বাস্তবতা। এর কারণ হলো বিগত কয়েক দশক ধরে চীনের অর্থনৈতিক ও সামরিক উত্থান, যা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সব ধরনের ব্যবধান প্রায় ঘুচিয়ে এনেছে।

    কাঠামোগতভাবে দ্বিমেরু বিশ্ব ব্যবস্থাকে বহু মেরুক বিশ্বব্যবস্থার চেয়ে অনেক বেশি স্থিতিশীল বলে বিবেচনা করা হয়। এর প্রমাণও আছে। স্নায়ুযুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া অস্ত্রের প্রতিযোগিতা করলেও তা কখনোই যুদ্ধ পর্যন্ত গড়ায়নি। দুই দেশের নেতৃত্বাধীন ব্লকে সবসময় উত্তেজনা বিরাজ করলেও সেই সময়টা তুলনামূলক স্থিতিশীল ছিল। এ কারণেই প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ জন লুইস গ্যাডিস স্নায়ুযুদ্ধের যুগকে ‘লং পিস’ বা ‘দীর্ঘস্থায়ী শান্তি’ বলে আখ্যা দিয়েছিলেন।

    চীন-যুক্তরাষ্ট্রের দ্বৈরথ নতুন দ্বিমেরু বিশ্বকে স্নায়ুযুদ্ধের সময়ের চেয়ে বেশি অস্থিতিশীল করবে এমনটা ভাবার যথেষ্ট কারণ রয়েছে। এ কারণেই এই ব্যবস্থায় স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য প্রয়োজন পড়বে দায়িত্বশীল রাষ্ট্রনায়কের।

    • সর্বশেষ

    রাইসির মৃত্যুতে যে প্রতিক্রিয়া জানাল ইরানের মিত্ররা

    মে ২১, ২০২৪ ১;৩২ পূর্বাহ্ণ

    ইরানের অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্টকে পুতিনের ফোন, সম্পর্ক জোরদারের অঙ্গীকার

    ১;৩০ পূর্বাহ্ণ

    রাইসির মৃত্যুতে ভারতে এক দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা

    ১;২৮ পূর্বাহ্ণ

    আইসিসিতে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন

    ১;২৭ পূর্বাহ্ণ

    রাইসির হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষের ছবি ও ভিডিও প্রকাশ: বিবিসি

    ১;২৫ পূর্বাহ্ণ

    বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় পাওয়া উচিত: মাশরাফি

    ১;২৩ পূর্বাহ্ণ

    রাইসি-সহ হেলিকপ্টারের সব আরোহীর মরদেহ উদ্ধার

    ১;২১ পূর্বাহ্ণ

    নিউইয়র্কে ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেখে গাড়ি কিনতে গিয়ে দুবৃর্ত্তের কবলে

    মে ২০, ২০২৪ ২;৫১ অপরাহ্ণ

    পন্ডিত রামকানাই দাশ যুগে যুগে সঙ্গীতের অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবেন। ….নিউইয়র্কে আলোচনা সভায় বক্তারা।

    ১১;৩০ পূর্বাহ্ণ

    পন্ডিত রামকানাই দাশ যুগে যুগে সঙ্গীতের অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবেন। ….নিউইয়র্কে আলোচনা সভায় বক্তারা।

    ১১;০৯ পূর্বাহ্ণ

    রাইসি জীবিত না ফিরলে কে হবেন ইরানের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট?

    ১০;২৯ পূর্বাহ্ণ

    পঞ্চম দফায় আজ ভারতে ৪৯ আসনে ভোটগ্রহণ চলছে

    ১০;২৬ পূর্বাহ্ণ

    ইতালির ভিসা সেন্টারে বিক্ষোভ হট্টগোল

    ১০;২৩ পূর্বাহ্ণ

    ভোগান্তির নাম ভিএফএস গ্লোবাল

    ১০;১৯ পূর্বাহ্ণ

    শপথ নিলেন তাইওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট লাই চিং-তে

    ১০;১৫ পূর্বাহ্ণ

    সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার: রিপোর্ট

    ১০;১৩ পূর্বাহ্ণ

    রাইসি মারা গেলে বিশ্ব নিরাপদ, মার্কিন সিনেটরের এ কেমন মন্তব্য!

    ১০;১০ পূর্বাহ্ণ

    নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি: যুদ্ধ বিরোধীদের প্রতিশোধ নিচ্ছে

    ২;০১ পূর্বাহ্ণ

    প্রেসিডেন্ট বাইডেনের দু’মুখো নীতি: ইসরাইলে যুদ্ধাস্ত্র আর গাজায় খাদ্য

    ১;৫৭ পূর্বাহ্ণ

    ৩০ ব্যাংকের এমডি নিউইয়র্কে আসছেন

    ১;৫৪ পূর্বাহ্ণ

    Copyright Banglar Kontho ©2024

    Design and developed by Md Sajibul Alom Sajon


    উপরে